Sat. Apr 13th, 2024
গাছ

বাগান করার শখ অনেকের থাকে। গ্রামে খোলা পরিবেশে বড় পরিসরে বাগান করার সুযোগ থাকলেও শহরে ভাড়া বাসায় অনেক সময় তা সম্ভব হয় না। তারপরও অনেকে শহরে বাসার ছাদে বা বারান্দায় বাগান করেন। আজকাল অনেক ইনডোর প্ল্যান্ট রয়েছে। এ ধরনের গাছ গৃহসজ্জার উপকরণ হিসেবে ব্যবহৃত হয়। তাছাড়া মানসিকতা, রুচি বদলাচ্ছে। ফলে অনেক বাসাবাড়িতেই এখন ছোট-বড় টবে বিভিন্ন গাছ, এমনকি সবজি গাছও দেখা যায়। এ সব গাছের নিয়মিত যত্ন নিতে হয়। বিশেষ করে নিয়ম মেনে দুবেলা পানি দিতে হয়।

ঈদের ছুটিতে বাড়ি যাবেন অনেকে। রেখে যাবেন শখের গাছগুলো। প্রচণ্ড গরমে পানি না পেয়ে গাছের অবস্থা কী হবে এ নিয়ে অনেকেরই দুশ্চিন্তা রয়েছে।

ঈদের ছুটিতে বাড়ি গেলেও গাছগুলো কীভাবে সতেজ রাখা যায় এবং যত্ন নেয়া যায় এ প্রসঙ্গে রাইজিংবিডির সাথে কথা হয় বেশ কয়েকজন বিশেষজ্ঞের।

বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বাকৃবি) ফসল উদ্ভিদ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. হাবিবুর রহমান প্রামানিক বলেন, গাছে তো পানি দিতেই হবে। দুই লিটারের কোকাকোলা বা পেপসির বোতল ছোট্ট ফুটো করে গাছের ওপর ঝুলিয়ে রেখে দিতে হবে। স্যালাইনের ব্যাগ থেকে যেভাবে ফোটা ফোটা পানি পড়ে সেভাবে গাছে পানি দেয়া যেতে পারে। আরেকটা কাজ করা যেতে পারে, যে টব বা পাত্রে গাছ রাখা হয়েছে তার নিচে যে প্লেট রয়েছে সেই প্লেটে পানি রাখতে হবে। টবের নিচে ফুটো থাকে। ফলে গাছ সেই পানি টানতে পারবে।

এ প্রসঙ্গে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্ভিদবিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মিহির লালা সালা বলেন, ঈদের ছুটিতে অনেকে বাড়ি যাবেন এটাই স্বাভাবিক। টবের গাছগুলো ভালো রাখতে অবশ্যই পানি দিতে হবে। গরমে তো অবস্থা এমনিতেই খারাপ! একটা ব্যবস্থা করা যেতে পারে৷ ৫ লিটারের পানির যে ক্যান রয়েছে সেগুলো যদি টবের উপর রেখে সেট করে দেয়া যায়। এমনভাবে রাখতে হবে যেন ফোটা ফোটা পানি গাছের ওপর পড়ে। পানি বেশি পড়লেও কিন্তু সমস্যা। একটা নির্দিষ্ট মাপে পানির পাত্র সেট করে দিলে সুফল পাওয়া যেতে পারে।

জাপানে একটি সিস্টেম আছে- ফোটায় ফোটায় পানি দেয়া। এতে অল্প করে পানি যাবে এবং গাছ রক্ষা পাবে। বলেন ড. মিহির লালা।

এ সময় বাসার দাড়োয়ান বা প্রতিবেশীর ওপর দায়িত্ব দেয়া যেতে পারে। আপনার অনুপস্থিতিতে অনুরোধে সাড়া দিয়ে তারা যদি গাছে পানি দেয়ার কাজটি করেন তাহলে সবচেয়ে ভালো হয়।

আপনার মূল্যবান মতামতটি শেয়ার করুন